ফিজিওথেরাপি কলেজ বাস্তবায়নের দাবি

0
84

ফিজিওথেরাপির মাধ্যেমে দেশের প্রায় দুই কোটি প্রতিবন্ধীকে কর্মক্ষম করে তোলা সম্ভব। আর এ কাজে মানসম্মত ফিজিওথেরাপি কলেজ ও কাউন্সিল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ প্রয়োজন। তাই মান সম্পন্ন ফিজিওথেরাপি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছে সম্মিলিত ফিজিওথেরাপি পরিষদ।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেঞ্জ লাউঞ্জে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানায় সংগঠনটি।

সংবাদ সম্মেলন বক্তারা বলেন, দেশের আপামর জনসাধারণ বিনামূল্যে বা স্বল্প মূল্যে, ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা পাওয়ার মাধ্যেমে নিজেরা সুস্থ হয়ে নিজেদের জীবন-যাপন পরিবর্তনের সঙ্গে রাষ্ট্রের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে নিজেদের সম্পৃক্ত করে সমৃদ্ধ জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারেন। হাইকোর্ট ২০১৫ সালে রিটটি খারিজ করে বাংলাদেশ কলেজ অফ ফিজিওথেরাপিক প্রকল্পটি বাস্তবায়নের নির্দেশনা প্রদান করেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট দফতরে সমূহে প্রতিনিয়ত চেষ্টা করেও সরকারের কোনো উদ্যোগ পরিলক্ষিত হচ্ছে না।

তারা বলেন, মেডিকেল সায়েন্সের বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত এ পেশাকে চরমভাবে অবনমন থেকে রক্ষা করতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত আমরা বাংলাদেশে ফিজিওথেরাপিস্টদের কাউন্সিল গঠনের চেষ্টা চালিয়া যাচ্ছি। বিষয়টি উপলব্ধি করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কাউন্সিলের খসড়া নীতিমালা গ্রহণ করে প্রজ্ঞাপণ জারি করে। কিন্তু সে ক্ষেত্রে আনুষ্ঠানিক সভায় ফিজিক্যাল মেডিসিনের চিকিৎসকদের বাঁধা এবং পরবর্তীতে বিএম এর তৎকালীন মহাসচিবের মৌখিক আপত্তির কারণে কাউন্সিল কার্যক্রম অচল অবস্থা দেখা দেয়। এ অবস্থায় জনসাধরণের সঠিক ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার স্বার্থে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গৃহীত স্বতন্ত্র ফিজিওথেরাপি কাউন্সিল দ্রুত বাস্তিবায়নের দাবি জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সম্মিলিত ফিজিওথেরাপি পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক এম এম আলম, যুগ্ম আহ্বায়ক দলিলুর রহমান, কোর্স সমন্বয় নজরুল ইসলাম, সদস্য ফরিদ উদ্দিন,সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।