বয়স ৩৫ পার হয়েছে – এই নিয়ে যারা চিন্তিত তাদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

0
37
প্রতিবেদক: সুপর্ণা

বয়েস ৩৫ হয়ে গেছে বলে নিজেকে বুড়ি বা বুড়ো ভাববেন না। শরীর সুন্দর রাখতে ব্যায়াম করুন, সঙ্গে ব্যালেন্স ডায়েট আর মন খুশি রাখুন। আলাদা করে কিছু করার প্রয়োজন নেই। সার্বিকভাবে রোগমুক্ত ও সুস্থ থাকার চেষ্টা করুন।

৩৫ বছরের পর পিঠে ব্যাথা, হাঁটু ব্যথা, ক্যালশিয়ামের ঘাটতি, এক্সারসাইজের অভাব সব কিছু থেকেই দেহে চর্বি জমতে পারে। অনেক সময় তলপেট, গলায় ও গালেও চর্বি জমে এর জন্য প্রয়োজন সঠিক ব্যায়াম ও ডায়েট।

ডায়েট মানে কিন্তু সব কিছু খাওয়া বন্ধ করে দেওয়া নয়। সব কিছুই খেতে পারেন, তবে অনুপাতে পরিমানের তারতম্য হতে হবে। তবে অবশ্যই কোন ডায়েটিশিয়ানের সাহায্য নিয়ে ডায়েট চার্ট বানাবেন।

এই বয়সে শরীরের কোষ বাড়ে না। তাই শরীরের বিশেষ যত্নের প্রয়োজন হয় যাতে শরীর ঠিক থাকে।

তাই কয়েকটি বিশেষ দিকে খেয়াল রাখুন –

  • একবারে বেশী না খেয়ে বারবার অল্প অল্প খান। প্রত্যেকটি খাবার যেমন ডাল ও দানাশস্য, দুধ ইত্যাদি খাদ্য তালিকায় রাখবেন। কোন বিশেষ অসুখ থাকলে অবশ্যই সেই অনুযায়ী খান। কতটা খাবেন তা অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেবেন।

ADD-Care4u-Sticker

  • খাবার তালিকায় দুধ জাতীয় পদার্থ বাড়িয়ে দিন। এতে প্রোটিন ও হাই ক্যালসিয়াম দুটোই পাবেন। দিনে একবেলা নিরামিষ খান।
  • সকাল বিকেল অবশ্যই হাটঁবেন ও ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজ করতে ভুলবেন না।
  • অনেক খেলেই শুধু মোটা হয় এটা কিন্তু ঠিক নয়। সারাদিন কিছু না খেয়ে থাকলে বা অনিয়মিত খাওয়াদাওয়ার জন্যেও আপনি মোটা হতে পারেন।
  • ব্রেকফাস্ট বাতিল করবেন না। আমরা অনেকেই ব্রেকফাস্ট বাতিল করে লাঞ্চ বেশী খাই। এটা একেবারে অনুচিত। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে।
  • খাবার বেশ কিছুক্ষণ পর ঘুমতে যান। আর ঘুম যেন পরিপূর্ণ ঘুম হয় তার দিকে খেয়াল রাখুন।