“অদম্য বাংলাদেশ” এর ৩য় বর্ষপূর্তি উদযাপন



  • Add Comments
  • Print
  • Add to Favorites

ইমন চৌধুরী :

গত ১০ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হল পথশিশুদের পুনর্বাসনে অসামান্য অবদান রাখা সংগঠন “অদম্য বাংলাদেশ, ফাউন্ডেশন” এর ৩য় বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান।

বাংলাদেশ যেমন অদম্য, ‘অদম্য বাংলাদেশ’- এর প্রত্যেকে সেই স্পিরিট ধারণ করে বলে আমি বিশ্বাস করি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্যসচিব মো. আবুল কালাম আজাদ পথশিশুদের সংগঠন অদম্য বাংলাদেশের তিনবছর পূর্তি উৎসবে এসে এ কথাই বলেন। বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এ উৎসবে তিনি আরও বলেন, এই সংগঠনে যারা কর্মী তারাই অভিভাবক এবং এটাই এদের বড় শক্তি।

তিনি আরও বলেন, এদের মতো মাত্র চার হাজার অদম্য সংগঠক পেলে সোনার বাংলা গড়ে উঠবে।

বুধবার অদম্য বাংলাদেশের স্বেচ্ছাসেবকরা তাদের পথশিশুদের সাথে নিয়ে মিলিত হয়েছিল। লক্ষ্য সারা বছরজুড়ে যারা একসাথে কাজ করেন,একসাথে স্বপ্ন দেখেন তাদের নিয়ে একসাথে আগামীর পথ পাড়ি দেওয়া। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অফিসের এটুআই প্রকল্পের মহাপরিচালক (প্রশাসন) কবির বিন আনোয়ার। তিনি শিশুদের উদ্দেশ্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা তোমাদের সাথে আছেন। একদিন এই বাংলাদেশ পথশিশুমুক্ত হবে, সেই স্বপ্ন দেখি আমরা। আমাদের বিশ্বাস আগামীতে আর বেশিদিন শিশুদের এই দুর্ভোগ দেখতে হবে না।

গত ১২ সেপ্টেম্বর বনশ্রীর ‘সি’ ব্লকের একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে ১০ শিশুকে উদ্ধারসহ চারজনকে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ। অদম্য বাংলাদেশের সেই আরিফুর, জাকিয়া, ফিরোজ ও হাসিবুলকে গ্রেপ্তার করা হলে এই সংগঠনটি পরিচিত পায়। এর আগে পর্যন্ত এরা নিভৃতে পথশিশুদের সেবা করতো।

সে সময় পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, অদম্য বাংলাদেশের এনজিও কার্যক্রম চালানোর নিবন্ধন নেই, সমাজ সেবা অধিদপ্তরের কোনো সনদও তারা নেয়নি। কিন্তু গ্রেপ্তার চারজনকে নির্দোষ দাবি করে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে শুরু থেকেই আলোচনা চলতে থাকে। তাদের মুক্তির দাবিতে রাজপথে মানববন্ধনও হয়। এরপর সংগঠনটির একজন শুভাকাঙ্ক্ষী এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলে ঘটনা দ্রুত বদলে যেতে থাকে।

এক পর্যায়ে রামপুরা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে ঢাকার মূখ্য মহানগর হাকিম আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দিয়ে গ্রেপ্তার আসামিদের অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করা হয়।
অদম্য বাংলাদেশের বর্ষসেরা স্বেচ্ছাসেবকেরা
বুধবারের অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আরিয়ান আরিফ। তিনি তার সংগঠনের কথা উল্লেখ করতে গিয়ে বলেন, অদম্য বাংলাদেশ অনেক চড়াই উৎরাইয়ের মধ্য দিয়ে এই জায়গায় পৌঁছেছে। আমাদের সাথে এই পথচলায় অনেকেই সামিল হয়েছেন নানা সময়ে। আমরা তাদের সম্মান জানাতে চাই, আমাদের মজার ইশকুলের পক্ষ থেকে। এই অনুষ্ঠানে মজার ইশকুলের সাথে নানাভাবে যুক্ত থাকা চিকিৎসক,শুভাকাঙ্ক্ষী ও গণমাধ্যমকর্মীদের সম্মাননা জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে আগারগাঁওয়ের মজার ইশকুলের শিক্ষার্থীরা দেশাত্মবোধক গান, নাচ ও কবিতা পাঠ করে আমন্ত্রিত অতিথিদের স্বাগত জানান।

No Comments to ““অদম্য বাংলাদেশ” এর ৩য় বর্ষপূর্তি উদযাপন”

Comments are closed.