আছিয়া–তামিমাদের পাশে প্রতিবন্ধী সেবাকেন্দ্র



  • Add Comments
  • Print
  • Add to Favorites

আছিয়া বেগম (৩৬) প্রায় এক বছর আগে স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। অভাবের সংসারে ভ্যানচালক স্বামীর পক্ষে ভালো চিকিৎসা করানো সম্ভব না হওয়ায় আছিয়ার শরীরের বাঁ পাশ অবশ (প্যারালাইজড) হয়ে যায়।
তামিমা আক্তার (৪) জন্ম থেকেই শারীরিক ও বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। তার চিকিৎসার জন্য পরিবারের সদস্যরা ঘুরেছেন বড় বড় হাসপাতালে। কিন্তু এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়নি তামিমা।
আছিয়া ও তামিমাদের মতো প্রতিবন্ধী নারী ও শিশুদের বাড়ির পাশেই চিকিৎসাসেবা নিয়ে হাজির হয়েছে ভ্রাম্যমাণ প্রতিবন্ধী সেবাকেন্দ্রের গাড়ি। খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার গঙ্গারামপুর ইউনিয়নে এ সেবাকেন্দ্র স্থাপন করেছে সেন্টার ফর ডিজঅ্যাবিলিটি ইন ডেভেলপমেন্ট (সিডিডি)। আর ওই ইউনিয়নের প্রতিবন্ধীদের জন্য দুই দিনব্যাপী ক্যাম্পের আয়োজন করেছে হিউম্যান, এনভায়রনমেন্ট লাইভলিহুড প্রমোশন সোসাইটি (হেল্পস)।
গতকাল বুধবার গঙ্গারামপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) কার্যালয় চত্বরে সেবা ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন ইউপি চেয়ারম্যান শেখ হাদী উজ্জামান। সকাল থেকে ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম থেকে চিকিৎসা ও পরামর্শ নিতে আসে কয়েক শ মানুষ। মূলত দৃষ্টি ও শ্রবণজনিত সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তিরা এ ক্যাম্পে ফিজিওথেরাপি, অকুপেশনাল থেরাপিসহ বিভিন্ন সেবা পাচ্ছে। রোগীদের চশমা, হুইলচেয়ার, শ্রবণযন্ত্র, কৃত্রিম পা বিনা মূল্যে সেবাকেন্দ্র থেকে সরবরাহ করা হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবারও সেবা চলবে।
সরেজমিনে দেখা যায়, গঙ্গারামপুর ইউপি কার্যালয় চত্বরে চিকিৎসা ও পরামর্শ নিতে হাজির হয়েছে কয়েক শ নারী, পুরুষ ও শিশু। কেউ হাজির হয়েছেন প্রতিবন্ধী সন্তানকে নিয়ে। কেউ হাজির হয়েছেন প্রতিবন্ধী ও রোগাক্রান্ত বাবা-মাকে নিয়ে। সবাইকে আন্তরিকতার সঙ্গে পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।
তামিমার মা নুসরাত জাহান ও আছিয়া বেগম বলেন, এর আগে বহু জায়গায় ঘোরাঘুরি করেছেন। বাড়ির পাশে এ সেবাকেন্দ্র পেয়ে তাঁরা খুশি।
আয়োজক প্রতিষ্ঠান হেল্পসের নির্বাহী পরিচালক গৌতম মণ্ডল বলেন, এ ইউনিয়নে প্রতিবন্ধীর সংখ্যা পাঁচ শতাধিক। এসব হতদরিদ্র প্রতিবন্ধী মানুষের পক্ষে সব সময় উপযুক্ত চিকিৎসাসেবা নেওয়া সম্ভব হয় না। কোন রোগের জন্য কোথা থেকে চিকিৎসা নিতে হবে, তা-ও অনেক সময় তাঁরা জানেন না। তাই এ এলাকায় প্রতিবন্ধী সেবা ক্যাম্প স্থাপন করে প্রাথমিক চিকিৎসা ও পরামর্শ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
সেবাদানকারী চিকিৎসক দলের প্রধান লিটন পাল বলেন, ‘প্রত্যন্ত অঞ্চলের এসব রোগীকে স্বল্প পরিসরে হলেও সেবা দিতে পেরে আমরা খুশি। এ ক্যাম্প থেকে রোগী বাছাই করে প্রয়োজনীয় উপকরণ দেওয়া হবে। যাদের দীর্ঘমেয়াদি থেরাপি প্রয়োজন, তাদের বাড়িতে গিয়ে থেরাপি প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।’

Tags:

No Comments to “আছিয়া–তামিমাদের পাশে প্রতিবন্ধী সেবাকেন্দ্র”

Comments are closed.