ঘুমের মধ্যে হাঁটুতে টান, মুক্তির উপায় ৩টি



  • Add Comments
  • Print
  • Add to Favorites

গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন। হঠাৎই পায়ের উরুতে কিংবা হাঁটুর নিচের মাংসপেশিতে টান ধরল। সঙ্গে প্রবল ব্যথা। পা ভাঁজ করলে, নাকি টানটান করলে এই আকস্মিক ব্যথা থেকে মুক্তি মিলবে, কিছুই বুঝতে পারছেন না।

শুধু যন্ত্রণায় ছটফট করছেন। আস্তে আস্তে কিছু ক্ষণ পরে ব্যথাটা চলে গেল ঠিকই, কিন্তু তার পরেও রয়ে গেল হালকা একটা ব্যথা।

পায়ে এমন হ্যাঁচকা টান কমবেশি সবার ঘুমের মধ্যেই হয়। কিন্তু জানেন কী, অতি সহজ ঘরোয়া কৌশলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি মিলতে পারে। স্বাস্থ্যবিষয়ক জার্নাল ‘হেলথ ৩৬৫’-তে সম্প্রতি সেই কৌশল সম্পর্কে পাঠককে অবহিত করা হয়েছে।

কৌশলটি সম্পর্কে জানার আগে জানা প্রয়োজন, কী কী কারণে পায়ে এভাবে টান ধরে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রধানত তিনটি কারণে ঘুমের মধ্যে পায়ে ক্র্যাম্পের সমস্যা হয়।

প্রথম কারণটি হল ডিহাইড্রেশন, অর্থাৎ শরীরে পানির অভাব। দ্বিতীয় কারণ, পটাসিয়ামের অভাব এবং তৃতীয়টি ম্যাগনেসিয়ামের অভাব।

বিশেষজ্ঞদের মতে, অতি সহজে ঘরোয়া উপায়ে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে। আসুন, জেনে নেওয়া যাক কৌশলগুলো-

১. পানির অভাব থেকে মুক্তির সবচেয়ে কার্যকর এবং সহজ উপায় হলো বেশি করে পানি খাওয়া। তবে সারাদিন ধরে যদি পানি খাওয়ার পরিমাণ বাড়ানো সম্ভব না হয়, তাহলে শুতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস হালকা গরম পানি খান। হালকা গরম পানির তাপমাত্রা শরীরের রক্তের তাপমাত্রার কাছাকাছি। ফলে গরম পানি অতি দ্রুত মাংসপেশি শোষণ করে নিতে পারে। ডিহাইড্রেশন থেকেও তাই দ্রুত মুক্তি মেলে।

২. পটাসিয়ামের অভাব মেটানোর জন্য পটাসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার বেশি করে খেতে হবে। পালং শাক, মিষ্টি আলু, নারকেল, দই, কলা, মাশরুম প্রভৃতি খাবার বেশি করে খান।

৩. মাছ, ডার্ক চকোলেট, পালং শাক, মুসুর ডাল, কুমড়ো বিচি, বাদাম, ঝোলাগুড় প্রভৃতি খাবারে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম থাকে। কাজেই নিজের শরীর বুঝে এই সমস্ত খাবার বেশি করে খেলেই ম্যাগনেসিয়ামের অভাব মিটবে।

আর এই তিন ধরনের অভাব মিটলেই পায়ে টান ধরার সমস্যা থেকেও নিশ্চিত মু্ক্তি পাবেন আপনি।

No Comments to “ঘুমের মধ্যে হাঁটুতে টান, মুক্তির উপায় ৩টি”

Comments are closed.