ডায়াবেটিসের কারনে বছরে ৩৪ লাখ লোকের মৃত্যু: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা



  • Add Comments
  • Print
  • Add to Favorites

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ওর্য়াল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন , ডাব্লু এইচ ও বলছে যে বিশ্বে প্রায় পঁয়ত্রিশ কোটি লোক ডায়াবেটিস রোগে ভুগছে।

জাতিসংঘ স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমান ডায়াবেটিসে বছরে অন্তত চৌত্রিশ লাখ লোকের মৃত্যু ঘটছে এবং এসব মৃত্যুর আশি শতাংশই ঘটছে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে।

জেনেভায় ডাব্লূ এইচ ও’র একজন মুখপাত্র হলেন তারিক জেসারাভিচ।

তারিক জেসারাভিচ বলছিলেন যে ডাব্লু এইচ ও’র অনুমান ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বে ডায়াবেটিসজনিত মৃত্যুর সংখ্যা দুই-তৃতীয়াংশ পরিমাণে বাড়বে। এটি একটি দুরারোগ্য ব্যাধি। তবে, উপযুক্ত জীবনাচরণ, মদ্যপান কমানো, ধূমপান ত্যাগ. স্বাস্থ্যকর খাদ্যগ্রহণ এবং শারীরিক সচলতা বাড়ানোর মাধ্যমে এই রোগ থেকে মৃত্যুর হার কমানো সম্ভব। সুতরাং, সমস্যাটি বড় হচ্ছে এবং দেশগুলোও সেসম্পর্কে সচেতন।

ডায়াবেটিস রোগ এবং তা প্রতিকারের উপায় সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে প্রতিবছর চৌদ্দই নভেম্বর বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালন করা হয়ে থাকে।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের খাদ্য নিরাপত্তা সম্মেলন

প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার এগারোটি দেশের নেতারা তাঁদের অঞ্চলের খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টি সমস্যার বিষয়ে রোমে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি বিষয়ক সংস্থা, এফ এ ও’র দপ্তরে শনিবার এগারোই নভেম্বর এক বৈঠকে বসছেন।

এফএও’র মহাপরিচালক হোসে গ্রাযিয়ানো ডি সিলভার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিতব্য উচ্চপর্যায়ের এই গোলটেবিল বৈঠকে খাদ্য ব্যবস্থায় প্রাকৃতিক দূর্যোগ এবং জলবায়ু পরিবর্তনের গুরুতর প্রভাবসমূহ মোকাবেলার উপায় নিয়ে আলোচনা করা হবে।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার অনেকে দেশই নিম্নমানের খাদ্য এবং র্দীঘস্থায়ী পুষ্টিহীনতার গুরুতর সমস্যার মুখোমুখি।

এফএও জানাচ্ছে যে এসব দ্বীপরাজ্যে স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যের চাহিদা ও সরবরাহ কম থাকায় খাদ্যজনিত অসুস্থতা বেড়ে যাচ্ছে।

প্রশান্ত-মহাসাগরীয় নেতারা খাদ্য সম্পর্কিত অন্যান্য হুমকির মধ্যে ভূমি এবং উপকূলীয় এলাকার মাটির গুণ নষ্ট হয়ে যাওয়া এবং মাছের মজুত কমে যাওয়ার মত বিষয়গুলোওে আলোচনা করবেন।

স্বাস্থ্যবান পশুপাখিকে অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া বন্ধের আহ্বান

সম্ভাব্য রোগের প্রার্দুভাব এড়ানোর জন্য কৃষক এবং খাদ্যশিল্পের উচিত স্বাস্থ্যবান পশুপ্রাণীদের ওপর অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগ বন্ধ করা।

পশুপালনে প্রবৃদ্ধির জন্য অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার বাড়তে থাকায় উদ্বিগ্ন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মঙ্গলবার সাতই নভেম্বর এই পরামর্শ দিয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনায় বলা হচ্ছে মানুষ এবং পশুপাখির ওপর অতিমাত্রায় অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার অ্যান্টিবায়োটিকের কার্য্যকারিতা ক্রমশই নষ্ট করে দিচ্ছে।

মানবদেহে গুরুতর সংক্রমণ ঘটায় এমন কিছু ব্যাকটেরিয়া ইতোমধ্যে অধিকাংশ জ্ঞাত চিকিৎসার বিরুদ্ধে প্রতেরোধী হয়ে উঠেছে এবং এই প্রবণতাকে উল্টে দেওয়া যে সম্ভব হবে তেমন সম্ভাবনা খুবই কম বলে ডাব্লু এইচ ও মনে করছে।

সংস্থার মহাপরিচালক, টেড্রস আধানম ঘেব্রেইসাস বলেছেন যে কার্য্যকর অ্যান্টিবায়োটিকের অভাব হঠাৎ এবং মারাত্মক রোগব্যাধির প্রার্দূভাব মোকাবেলার ক্ষেত্রে বড়ধরণের নিরাপত্তা হুমকি তৈরি করবে।

রাখাইনে ত্রাণকর্মীদের প্রবেশাধিকার দাবি জাতিসংঘের

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ রাখাইন রাজ্যে জাতিসংঘ এবং তার শরীক মানবিক সহায়তাকারীদের অবাধ প্রবেশাধিকার দেওয়ার জন্য মিয়ানমারের প্রতি দাবি জানিয়েছে।

সোমবার ৬ নভেম্বর নিরাপত্তা পরিষদ সভাপতির এক বিবৃতিতে রাখাইন রাজ্যে আন্তসাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিবরণে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

গত অগাস্টের পর থেকে ঐ সহিংসতার কারণে রাখাইন রাজ্য থেকে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন।

বিবৃতিতে একটি নিষ্ঠুর জাতিগত নিধন অভিযানের সমতুল্য নিরাপত্তা তৎপরতার জন্য অভিযুক্ত মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানানো হয়।

একইসাথে শরণার্থীদের স্বেচ্ছায় নিরাপদ এবং মর্যাদার সঙ্গে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের সুযোগ দেওয়ার কথাও বিবৃতিতে বলা হয়।

খাদ্যপণ্য আমদানির ব্যয় বাড়বে: এফ এ ও

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি বিষয়ক সংস্থা, ফুড অ্যান্ড অ্যাগ্রিকালচারাল অর্গানাইজেশন, এফ এ ও নয়ই নভেম্বর, বৃহস্পতিবার বলেছে যে বিশ্বে সরবরাহ চাঙ্গা হওয়া সত্ত্বেও খাদ্য আমদানীর ব্যয় গতবছরের তুলনায় প্রায় ছয় শতাংশ বাড়বে।

এফএও তার সর্বসাম্প্রতিক ফুড আউটলুক প্রতিবেদনে বলেছে যে খাদ্য আমদানীর ব্যয় বাড়বে প্রায় এক দশমিক চার ট্রিলিয়ন ডলার।

আমদানী ব্যয় বাড়ার কারণ হিসাবে সংস্থা বলছে আন্তর্জাতিক বাজারে খাদ্যপণ্যের চাহিদা বেড়ে যাওয়া এবং পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধিই প্রধান ভূমিকা পালন করছে।

No Comments to “ডায়াবেটিসের কারনে বছরে ৩৪ লাখ লোকের মৃত্যু: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা”

Comments are closed.