বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস আজ

0
16

ইমন চৌধুরী :

আজ ৮ই সেপ্টেম্বর বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস।

ফিজিও অর্থ শারীরিক আর থেরাপি অর্থ চিকিৎসা পদ্ধতি অর্থাৎ ফিজিওথেরাপি অর্থ হচ্ছে বিশেষ ধরনের শারীরিক চিকিৎসা পদ্ধতি। ১৯১৩ সালে নিউজিল্যান্ডের একদল স্বাস্থ্যকর্মী তাদের দেশে চিকিৎসা সেবায় প্রথমবারের মতো ফিজিওথেরাপি সেবা দেওয়া শুরু করে। ঠিক এর পরের বছর ১৯১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্র তাদের দেশেও ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা সেবা দেওয়া আরম্ভ করে।

এরপর শুরু হয় ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নতি কাজে নানা গবেষণা। ১৯২১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসক মেরি এমসি মিলান ফিজিক্যাল থেরাপিস্ট অ্যাসোসিয়েশন গঠন করেন এবং ঘোষণা দেন এখন থেকে পঙ্গুদের পুনর্বাসনের জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানের আধুনিক শাখাটির নাম ফিজিওথেরাপি। ১৯২৪ সালে জিওরজিয়া ওয়ার্ম স্পিং ফাউন্ডেশন পোলিও নিয়ে কাজ শুরু করে, এক পর্যায়ে ফাউন্ডেশনটির অন্যতম কর্মী সিস্টার কিননি পোলিও চিকিৎসায় ফিজিওথেরাপি অন্তর্ভুক্ত করেন। ১৯৫০ সালে পঙ্গুত্ব ও বাত ব্যথা প্যারালাইসিস চিকিৎসায় ফিজিওথেরাপি উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন হাসপাতালে নিউরোলজি, অর্থোপেডিকস ডিপার্টমেন্টের পাশাপাশি স্থান করে নেয়। তারপর বিজ্ঞানের অবদানে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ধীরে ধীরে সংযুক্ত হতে থাকে হাইড্রোথেরাপি, ক্রায়োথেরাপি, কাইনেশিওলজি। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৮০ সালে চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা বাত ব্যথা ও প্যারালাইসিস চিকিৎসায় ফিজিওথেরাপিতে যোগ করেন ইলেকট্রিকাল স্টিমুলেশন, শর্টওয়েভ ডায়াথেরামি, আল্ট্রাসাউন্ড ওয়েভ, মাইক্রো ওয়েভ ইনফ্রারেড রেডিয়েশন, আল্ট্রাভায়োলেট রেডিয়েশন, ইলেকট্রম্যাগনেটিক ওয়েভ, ওয়াক্স বাথসহ ফেরাডিক, গ্যালভানিক কারেন্ট।

ফিজিওথেরাপিতে এ অংশটির নাম হয় ইলেকট্রোথেরাপি। ১৯৯০ সালে ফ্রেডি কেলর্টেনবর্ন নামের একজন ফিজিওথেরাপিস্ট ম্যানুয়াল থেরাপির বিভিন্ন ধারা ব্যবহার করে রোগীকে সুস্থ করে আলোড়ন সৃষ্টি করে। এভাবেই সময়ের সঙ্গে সাফল্য অর্জনের মধ্য দিয়ে ফিজিওথেরাপি বাত ব্যথা প্যারালাইসিস ও স্পোর্টস ইনজুরি এবং পঙ্গুদের পুনর্বাসনে চিকিৎসা বিজ্ঞানে অন্যতম শাখা হিসেবে স্থান করে নেয়।

দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি এসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ ফিজিক্যাল থেরাপি এসোসিয়েশন  কর্তৃক দিবসটি যথাযথ মর্যাদার সাথে উদযাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এবারের প্রতিপাদ্য : Physical Activity for Life “জীবনের জন্য শারীরিক সচলতা

ইতোমধ্যেই দিবসটি উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ফিজিওথেরাপি কলেজগুলোতে সচেতনতামূলক পোষ্টার ও ব্যানার দেয়া হয়েছে।

দিবস উপক্ষ্যে বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি এসোসিয়েশন (বিপিএ) এর কার্যক্রমগুলো হলো :

  • কেন্দ্রীয় ও জেলা পর্যায়ে র‍্যালি, আলোচনা সভা ও মতবিনিময়।
  • প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান।
  • সারাদেশব্যাপী বিভিন্ন স্থানে বিনামূল্যে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ক্যাম্প

বিপিএ এর শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ডা. সাইফুল ইসলাম, পিটি মেডিভয়েসকে  বলেন, কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আগামী ৮ই সেপ্টেম্বর সকাল ৯টায় একটি র‍্যালি আয়োজন করবে। র‍্যালীটি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে শুরু হবে এবং জাতীয় প্রেসক্লাবে গিয়ে শেষ হবে।

ফিজিওথেরাপি প্রফেশনের সকল ছাত্র ছাত্রী ও শিক্ষকবৃন্দ, ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকবৃন্দ এবং ফিজিওথেরাপি প্রফেশনের শুভাকাক্ষীগণকে সবাই সকাল ৯ টার মধ্যে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে ফিজিওথেরাপি পেশাজিবী সংগঠন বাংলাদেশ ফিজিক্যাল থেরাপি এসোসিয়েশন (বিপিএ) এর উদ্যোগে দেশব্যাপী ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মাধ্যমে দিবসটি উদযাপনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে শুক্রবার সকাল ১০টায় নগরীর শাহবাগ চত্বর থেকে একটি শোভাযাত্রা শুরু হয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবে গিয়ে সেখানে একটি সমাবেশ এর মাধ্যমে শেষ হবে।