ব্যাথায় আক্রান্ত রোগীদের বিশ্ব ইজতেমায় করণীয়



  • Add Comments
  • Print
  • Add to Favorites

মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জামায়েত হয় বাংলাদেশে প্রতি বছর বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষ্যে, এইথানে মুছল্লিবৃন্দের টানা তিনদিন অবস্থান করতে হয় এবং বেশীরভাগ সময়ই কাটে ইবাদত বন্দিগীর মাধ্যমে কখনও বক্তব্য শোনা, কখনও জিকির আজগার ও নামাজ আদায়ের মাধ্যমে। বিশ্ব ইজতেমার জন্য যে জায়গা নিরধারিত আছে সেখানে স্থায়ী কোন আবাসস্থল বা টয়লেট থাকে না অস্থায়ীভাবে তাবু ও টয়লেট তৈরি করা হয়, তাই বিশেষ করে যারা কোমর, ঘাড়, হাটু ও কাধের ব্যাথায় ভূগছেন তাদের বিশেষ সতরকতা অবলম্বন করতে হবে। যারা কোমর ও হাটু ব্যাথায় ভূগছেন তাদের বসার জন্য ভ্রাম্যমান চেয়ার সাথে নিতে হবে কারণ দীর্ঘক্ষণ নীচে বসে থাকলে কোমর ও হাটু ব্যাথা বেড়ে যেতে পারে, পাশাপাশি দীর্ঘক্ষণ বসে না থেকে মাঝে মাঝে দাড়ানো হাটহাটি করতে হবে এবং হাটাচলার সময় কোমর ব্যাথার জন্য লাম্বার করসেট ও  ব্যবহার হাটু ব্যাথার জন্য নি কেপ বা নি সাপোরট ব্যবহার করতে পারেন। যারা  ঘাড় ও কাধের ব্যাথায় ভূগছেন তাদের লাগেজ বহন করার সময় সতরকতা অবলম্বন করতে হবে, মাথার উপর ওজন বহন করবেন না। শোবার সময় ১টা মধ্যম সাইজের বালিশ ব্যবহার করবেন যার অধেকটুকু মাথার নীচে ও বাকী অধেকটুকু ঘাড়ের নীচে দিবেন, পাশাপাশি কিছু ব্যায়াম করতে হবে যা ঘাড়ের ও কাধের মাংসপেশীগুলিকে স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে।

ডা: এম ইয়াছিন আলী

বাত, ব্যাথা, পারালাইসিস ফিজিওথেরাপি বিশেষজ্ঞ

চেয়ারম্যান চীফ কনসালটেন্ট

ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসপাতাল, ধানমন্ডি, ঢাকা

মোবা : ০১৭১৭ ০৮ ৪২ ০২AA

No Comments to “ব্যাথায় আক্রান্ত রোগীদের বিশ্ব ইজতেমায় করণীয়”

Comments are closed.