ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ শাখা দপ্তর সম্পাদক ভাগিনার কাছে মামার আবেগজনিত খোলা চিঠি



  • Add Comments
  • Print
  • Add to Favorites

প্রিয় ভাগিনা রাব্বি, এতদিন শুধু তোমাকে দেখেছি কিছু বলিনি আজ কিছু বলবো। তোমার মেধা,দক্ষতা নিষ্ঠা,সততা এবং ভালবাসা দিয়ে বাংলাদেশ ছাএলীগ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ শাখা দপ্তর সম্পাদক তোমার যে সংপৃক্ততা দেখেছি। তা সত্যিই আমি আজ গর্বিত। তোমাকে ছোটবেলায় আমি বঙ্গবন্ধুর যে আর্দশের কথা তোমার হৃদয়ে দিয়েছিলাম। তুমি যে এভাবে বঙ্গবন্ধুকে ভালবেসেছো এবং লালন করেছো তাতে আজ আমি মুগ্ধ। তুমি অনেক বড় হবে আমি বিশ্বাস করি। কিন্তু মাঝে মাঝে ভয় হয় এখন যেভাবে হাইব্রিড বিএনপি জামাত শিবির আওয়ামীলীগে ঢুকেছে। সেখানে কি আমার ত্যাগী রাব্বি টিকতে পারবে? তারপরেও বলি ভাল করে লেখাপড়া কর। আমি জানি তুমি অনেক মেধাবী। তোমাকে একটু সুযোগ দিলে তুমি অনেক কিছু হতে পারবে এটা আমার বিশ্বাস। তুমি আমার ছাএ ছিলে আমার থেকে কেউ ভাল জানে না। তোমার চলার পথে সব সময় আমাকে পাবে। আমাদের দেশনেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন “ভাল নেতা হবার পাশাপাশি একজন ভাল ছাএ ও হতে হবে”। তাই বলি ভাল করে লেখাপড়া কর। ভাল একটি চাকরি পাও সেই দোয়া করি। আমি জানি তোমার লেখাপড়ার খরচ চালাতে অনেকটাই কষ্ট হয়। একদিন সব ঠিক হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ। আমাদের মা শেখ হাসিনা যদি আর কষ্ট করে দুটা জাতীয় নির্বাচনে জয় লাভ করে দেখবে দেশে আর বেকার থাকবে না। একটা কথা বলি তোমার যদি এই ব্রাহ্মণবাড়িয়া কলেজ শাখা সম্মেলন ০৭/০৩/১৭ ইং হবার পরে কোন পদ না থাকে তারপরে ও কোন ধরনের দু:খ করবে না। কারো উপর রাগ অভিমান করবে না। আমি তো সেই ক্লাস থ্রি ফোর থেকে এখন পর্যন্ত আওয়ামীলীগ দল করি। তুমি তো জান কখনো কি দেখেছো শুনেছো কারো কাছে গিয়ে বলতে আমাকে পদ দেন, না হলে দল করবো না। আমি এমন কখনো করি নাই সেটা তুমি ভাল করেই জান। সব সময় আওয়ামীলীগকে ভালবাসেছি শেখ হাসিনাকে ভালবেসেছি। এই আওয়ামীলীগকে ভালবাসার কারনে আমার চাচাদের সাথেও একসময় আমার সম্পর্ক খারাপ গিয়েছিল এমন কি চেয়ারম্যান অফিস পর্যন্ত আমার নামে মিথ্যা বিচার হয়েছিল। আজ ও আমি ভুলি নাই। তারপরেও আমি আওয়ামীলীগকে ভালবেসেছি। আর সারাজীবন ভালবাসে যাব কেউ জানুক আর না জানুক আমি তো জানি আমি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগকে কত ভালবাসি। তোমাকে বুজানোর আর কিছুই নাই আমার। আমাদের এলাকায় তো তুমি দেখছোই কত বিএনপি’র নেতারা এখন আওয়ামীলীগ করে। এজন্যই তোমাকে নিয়ে ভয় হয়। এই বিএনপি’র নেতারা কখনই আওয়ামীলীগকে ভালবাসতে পারে না। সুযোগ নেয়ার জন্য দলে ঢুকেছে। আর মুখে মুখে বলে আওয়ামীলীগ করি। আমাদের নেতারা বেশীর ভাগই তা বুজে না। রাজনীতিতে এখন শিক্ষিত লোকে সংখ্যা অনেক কমে গেছে বিশেষ করে গ্রাম অঞ্চলে। তাই ভয় হয় ইজ্জত সম্মানের এজন্য কথা বলি না। এখন দলের সুবিধা লোভী নেতারা মন্ত্রী-এমপি’র মন জয় করার জন্য নিজের দলের ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে সব চোর বাটপারদের দলে ঢুকিয়েছে আর বলছে আমাদের দলে অনেক লোক ঢুকেছে। তোমার কি মনে হয় এখন যে জামাত-বিএনপি’র লোকেরা আওয়ামীলীগে ঢুকেছে তারা আওয়ামীলীগের বিপদে থাকবে? আমি ১০০% নিশ্চিত দিয়ে বলতে পারি তারা সুবিধালোভী ফায়দা লুটার জন্য দলে ঢুকেছে। যখন সময় ফুরিয়ে যাবে আবার চলে যাবে। মাঝে মাঝে কান্না করতে ইচ্ছে করে এত কষ্ট করে মিছিল মিটিং করে এলাকার বড় ভাইদের কাছে খারাপ হয়ে রাজপথে নেমে ২০০৮ সালে দলকে ক্ষমতায় আনলাম। আর এখন আমাদেরকেই চিনে না। তারপরেও বলি শোকরিয়া ভাল আছি। সামনে একাদশ নির্বাচনে অনেক বড় পরীক্ষা আওয়ামীলীগের জন্য। সেজন্য বলি কোন রকম বিবাদে জড়াবে না কোন পদ না পেলেও। দলকে ভালবেসে যাও নি:শ্বার্থ ভাবে। আর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জন্য দোয়া কর যেন আগামী একাদশ নির্বাচনে জয়ী হতে পারে। তাহলেই দেশ হবে উন্নত আগামী প্রজন্মের জন্য নিরাপদ। আর আমরা পাব সুন্দর একটি দেশ।এই আশা রেখেই তোমার মঙ্গল কামনা করছি। জয় হোক আমাদের দেশনেত্রী শেখ হাসিনার। ইতি- তোমার মামা মো:মাহাবুব আলম অপু

Tags:

No Comments to “ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ শাখা দপ্তর সম্পাদক ভাগিনার কাছে মামার আবেগজনিত খোলা চিঠি”

Comments are closed.