সাইকের ছাত্রী জারিন সুবাহ’র অকাল মৃত্যুতে আমরা শোকাহত

0
21

গত (১২/০১/২০১৬) তারিখ রাত ৯:৩০ মিনিটে সাইক ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল টেকনোলজী’র ল্যাবরেটরী অনুষদের মেধাবী ছাত্রী কিডনী রোগে আক্রান্ত অবস্থায় এ দুনিয়া ছেড়ে চলে গেছেন।
মৃত্যুকালে তার বয়স ছিলো ২২বছর।

গত ২০১৫ সালের আগস্ট মাস হতে জারিন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তার দুইটি কিডনি পুরোপুরিভাবে অকেজো হয়ে যায়। চিকিৎসারর জন্য বিপুল পরিমাণে অর্থের প্রয়োজন পড়ে। তার পরিবারের পক্ষে এত পরিমাণ খরচ বহন করা সম্ভব ছিলো না।

শেষ পর্যন্ত জারিনের কয়েকজন বন্ধু মিলে বিভিন্ন জায়গায় আর্থিক সাহায্য ও সহযোগীতা চাওয়া শুরু করে। এরপর “অর্পণ ব্লাড ফাউন্ডেশন” নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের কিছু তরুণ স্বেচ্ছাসেবক সহ বিভিন্ন মহল থেকে কিছু ব্যাক্তি জারিনের জন্য তহবিল সংগ্রহ করার নিরলস প্রচেস্টা চালায়।
কিন্তু ডায়ালাইসিস সহ বিভিন্ন রকম চিকিৎসা খরচ সে পরিমাণ অর্থ দিয়ে চালানো সম্ভব হচ্ছিলো না। প্রতি সপ্তাহে দুইবার ডায়ালাইসিস করা হতো। সপ্তাহে চার ব্যাগ ব্লাডের দরকার হতো। অনেক কস্টে তা ম্যানেজ করা হতো। কিন্তু এভাবে আর কতদিন? জারিনের কিডনী ট্রান্সপ্ল্যান্ট এর জন্য প্রয়োজনীয় পরিমাণ অর্থ যোগাড় করা সম্ভব হয়নি। যার ফলে এ সুন্দর একটি মেধাবী প্রাণ অকালে ঝরে যেতে হলো।

ভাগ্যের কাছে আজ হেরে গেলো মানবতা। আর কত প্রাণ গেলে দেশের উচ্চবিত্ত মানুষদের মনে মানবতা জন্ম নিবে? আর কত মায়ের বুক খালি হলে দেশে মানবতা জেগে উঠবে?
দেশ ও জাতির কাছে আমরা এ প্রশ্ন রেখে যেতে চাই।

আমরা আর কোন মানুষকে এভাবে যেতে দিতে চাই না। চাই না আর কোন চোখের পানি।

মানুষ মানুষের জন্য,
জীবন জীবনের জন্য।

এ কথার বাস্তব রূপ চাই।