স্পোর্টস ইনজুরির কারণ ও করণীয় [ ভিডিওসহ ]



  • Add Comments
  • Print
  • Add to Favorites

খেলাধুুলার সাথে ইনজুরি একে বারে অতপোত ভাবে জড়িত। খেলতে গেলে ইনজুরির স্বীকার হতেই হয় খেলোয়াড়দের। কিন্তু কেন বার বার খেলোয়াড়রা ইনজুরির স্বীকার হয়ে থাকেন? ইনজুরির আক্রান্ত হওয়ার কারণ গুলো এক কথায় বলা যাবে না। তবে মুলত দুটি কারণের জন্য খেলোয়াড়রা ইনজুরির স্বীকার হয়ে থাকেন।

অতিরিক্ত পরিশ্রম : অনেক সময় কোচরা অনুশীলনের সময় জেনে বা না জেনে দূত ফলাফলের প্রত্যাশায় খেলোয়াড়দের উপর পরিশ্রমের মাত্রা বাড়িয়ে দেন। যার ফলে খেলোয়াড়দের মাংস পেশী, টিস্যু ফাইবার বন এগুলো স্বাভাবিক কাজ করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। যার ফলে খেলোয়াড়রা বিভিন্ন ধরনের ইনজুরির স্বাীকার হয়ে থাকে।

দেখুন ভিডিওটি:

আঘাতজনিত কারণ : আমরা প্রায় লক্ষ্য করি যে, বিভিন্ন ইভেন্টের খেলোয়াড়দের মধ্যে যেমন- ফুটবল, হকি, জুডো, কুস্তি, কাবাডি, কারাতে অর্থ্যাৎ যে খেলাগুলোতে একে অপরের সাথে সরাসরি বডি কন্ট্রাক হয়ে থাকে যে সমস্ত খেলা গুলোতে খেলোয়াড়রা আঘাতজনিত কারণে ইনজুরির স্বীকার হয়ে থাকে।

এছাড়া, শতভাগ শারীরিক ফিটনেস, শরীরের টোটাল সম্বনয় সাধন ও বায়ো মটর এবিলিটির জন্য খেলোয়াড়রা অনেক সময় ইনজুরিতে আক্রান্ত হয়ে থাকে। অনেক সময় দেখা যায় যে, অসমতল মাঠ, ইনডোরে পর্যাপ্ত বায়ু চলাচলের ব্যবস্থা না থাকা এবং উডেন ফোর স্মুথনেস না থাকার কারণে বিশেষ করে ব্যাডমিন্টন, টেবিল টেনিস ও ভলিবল ইভেন্ট সমুহের খেলোয়াড়রা বেশির ভাগ সময়ে হাটুর ইনজুরি, অ্যাঙ্কেল ইনজুরি, স্পাইনাল কট ইনজুরি ও কাপ মাসল ইনজুরিতে আক্রান্ত হন।

মনে রাখতে হবে একক ইভেন্টের ক্ষেত্রে খেলোয়াড়রা Hamstring, Tibialis-anterior (সিনবন), Peroneus longus (কাপ মাসল), Knee (হাঁটু), Ankle, Metatarsals ইত্যাদি ইনজুরিতে আক্রান্ত হয়ে থাকেন।

উপরোক্ত ইনজুরিতে আক্রান্ত হলে যা করনীয় :

১. খেলার মাঠে গরষফ রহলঁৎু যেমন- ফুলে গেলে, ভিতরে ও বাইরে আঘাত পেলে সেই খেলোয়াড়কে তাৎক্ষনিক ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে বরফ দিতে হতে ইনজুরি স্থানে। ২৪ঘন্টা পর্যন্ত বরফ চিকিৎসা দেয়া যেতে পারে।

২. মনে রাখতে হবে অনুশীলন ও খেলা চলাকালীন সময়ে খেলোয়াড়দের তাৎক্ষনিক চিকিৎসার জন্য মাঠে ডাক্তার, অ্যাম্বুলেন্স, স্ট্রেচার, বরফ ও ফাস্ট এইড বক্স ইত্যাদি থাকা বাঞ্চনিয়।

৩. ইনজুরির ধরণ ও মাত্রা অনুযায়ী চিকিৎসার প্রয়োজন হলে তাৎক্ষনিক ভাবে অ্যাম্বুলেন্সের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সরনাপন্ন হতে হবে।

৪. এছাড়া, খেলার মাঠ হতে হবে সমতল ও খেলার উপযোগী, খেলার আগে দরকার ঠিকমত ওয়ার্ম আপ করা, অনুশীলন ও খেলার সময় পুরোপুরি মনেযোগী থাকতে হবে।

৫. রাত জাগার কারণেও খেলোয়াড়রা ইনজুরিতে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। ইদানিং লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে খেলোয়াড়রা অনুশীলন বা খেলার পর কোচের নির্দেশনা না মেনে মোবাইল, ট্যাব ও ল্যাপ্টপে অধিক সময় পার করে থাকেন। ঠিকমত রেস্ট না করার শরীরের অঙ্গ প্রতঙ্গ গুলো ইনএ্যাকটিভ থাকে। ফলে খেলোয়াড়রা ইনজুরিতে পরছেন বেশি। তাই ইনজরি মুক্ত থাকার জন্য রেস্ট অবশ্যই প্রয়োজন।

৬. অনেক খেলোয়াড় ধুমপান ও মদ্য পান করেন। এটিও ইনজুরির একটি কারণ। তাই খেলোয়াড়দের ইনজুরি মুক্ত থাকতে হলে ধুমপান, মদ্যপান ও মাদক সেবন থেকে বিরত থাকতে হবে।

Tags:

No Comments to “স্পোর্টস ইনজুরির কারণ ও করণীয় [ ভিডিওসহ ]”

Comments are closed.