‘হাই হিল’ থাকায় মায়ের কোল থেকে পড়ে শিশুর মৃত্যু

0
21
Print

মায়ের কোলে চেপে ছয়মাসের ছোট্ট মুহম্মদ শেখ গিয়েছিল বিয়ে বাড়িতে। মা ফাহমিদা শেখ বিয়ে বাড়িতে গিয়েছিলেন হাই-হিল জুতো পায়ে। ছেলেকে কোলে নিয়ে তিনি হাঁটছিলেন দোতলার বারান্দায়। হঠাৎই হাই হিল জুতোর ব্যালান্স হারিয়ে যায় মায়ের। কোল থেকে ছিটকে পড়ে ছোট্ট মুহম্মদ।

আত্মীয় স্বজনার দৌড়ে একতলায় গিয়ে দেখতে পান রক্তস্রোতের মধ্যে পড়ে রয়েছে ওই শিশুটি। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

ঘটনাটি ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের কল্যান শহরের। কাছের উল্লাসনগর শহর থেকেই আত্মীয়র বিয়েতে কল্যানে গিয়েছিলেন ওই দম্পতি।

ঝুঁকির কারণে হাই হিল পরতে মেয়েদের নিরুৎসাহিত করেন অনেকে বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে তারা যখন বাড়ি ফেরার জন্য দোতলার বারান্দা দিয়ে হেঁটে আসছিলেন ফাহমিদা। তখনই জুতোর হিল উল্টিয়ে গিয়ে হুমড়ি খেয়ে পড়েন, কোল থেকে ছিটকে যায় শিশু সন্তান।

কল্যান শহরের পুলিশ কর্মকর্তা বিজয় খেদেকার স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন যে, তারা একটি দুর্ঘটনায় মৃত্যুর মামলা রুজু করেছেন। ওই বিয়ে বাড়িতে তদন্তও করা হয়েছে। ময়না তদন্তের পরে ওই শিশুর দেহ তুলে দেওয়া হয়েছে পরিবারের হাতে।

অস্থি বিশেষজ্ঞরা সাধারণত হাই-হিল জুতো পরতে নিষেধ করে থাকেন নারীদের। তারা বলেন, এধরণের জুতো দীর্ঘদিন ধরে পরতে থাকলে মানবদেহের হাড়ে বিরূপ প্রভাব পড়ে।

এছাড়া স্ত্রীরোগ ও ধাত্রীবিদ্যা বিশেষজ্ঞরা সন্তান প্রসবের আগে বা পরে হাই হিল জুতো পরতে নিষেধ করেন, যাতে হিল জুতো উল্টিয়ে গিয়ে গর্ভবতী অথবা সদ্য-প্রসূতি মা এবং সন্তানের চোট আঘাত না লাগে।

ফাহমিদা চিকিৎসকদের সেই নিষেধাজ্ঞা পালন করেছিলেন কী না জানা যায় নি। তবে সম্ভবত আত্মীয়ের বিয়েতে সাজগোজের অঙ্গ হিসাবেই তিনি হিল দেওয়া জুতো পায়ে দিয়েছিলেন।

কিন্তু সেই সামান্য হিল উল্টিয়ে গিয়েই যে তার শিশুপুত্রের এত বড় বিপদ ঘটে যাবে, তা নিশ্চিতভাবেই দু:স্বপ্নেও ভাবেন নি গৃহবধূ ফাহমিদা।