সাময়িক সনদ দেওয়ার অনুরোধ গণস্বাস্থ্যের কিট ব্যবহারের জন্য

নিউজ

ওষুধ প্রশাসনের অনুমোদন পাওয়ার পর দশ দিন কেটে গেলেও পরীক্ষার জন্য এখন পর্যন্ত গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত কিটের স্যাম্পল নেয়নি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ। ফলে কিটের ব্যবহারিক পরীক্ষা এখনও শুরু হয়নি। এই পরিস্থিতিতে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর মতো কিট ব্যবহারের জন্য সাময়িক সনদ দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

সোমাবার বিকেলে ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের ‘গেরিলা কমান্ডার মেজর এ টি এম হায়দার বীর উত্তম মিলনায়তনে’ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ অনুরোধ জানান তিনি। এর আগে গত রোববার তিনি সংবাদমাধ্যমের সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, সোমবার থেকে বিএসএমএমইউতে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হবে বলে তাকে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সোমবারও তার কাছ থেকে কর্তৃপক্ষ কিট সংগ্রহ না করার কারণে তিনি এই সংবাদ সম্মেলন ডাকেন।

সংবাদ সম্মেলনে ডা.জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‌‘অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, আমাদের সব রকম প্রস্তুতি থাকার পর এখন পর্যন্ত কিটের পরীক্ষা শুরু করতে পারিনি। কারণ, বিএসএমএমইউ আমাদের কাছ থেকে এখন পর্যন্ত স্যাম্পল নেয়নি। এটাই ব্যর্থতা। তবে এজন্য কাউকে দোষারোপ করব না। বিএসএমএমইউ যে কমিটি গঠন করে দিয়েছে, সে কমিটি চিঠিপত্র রেডি করে ফেলেছে। এখন ভিসির অনুমোদন দরকার। সেই অনুমোদনটা হলেই হয়তো তারা আমাদের কাছ থেকে কিটের স্যাম্পল নেবে। আমাদের কিটও রেডি আছে। তারা চাইলে আধা ঘণ্টার মধ্যে কিট পৌঁছে দিতে পারব।’

তিনি আরও বলেন, গণস্বাস্থ্যই প্রথম দ্রুত টেস্ট পদ্ধতি আবিষ্কার করেছিল। কিন্তু নানা জটিলার কারণে ‘প্রথম আবিষ্কার’ এর সম্মানটুকু আমরা নিতে পারিনি। এরই মধ্যে আমেরিকাসহ কয়েকটি দেশ র‌্যাপিড টেস্ট পদ্ধতির অনুমোদন দিয়ে দিয়েছে। তারা সাময়িক অনুমোদন নিয়ে কাজ শুরু করেছে। অতএব একইভাবে গণস্বাস্থ্যের কিটের সাময়িক সনদ দেওয়া হোক। অন্তত কিছু মানুষের উপকার করার চেষ্টা করি। কারণ দেশের অবস্থা ক্রমেই খারাপের দিকে যাচ্ছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘লকডাউনের কারণে মার্কিন গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিডিসি গণস্বাস্থ্যের কিট নিতে পারছে না। তারা কাছে ৮০০ স্যাম্পল চেয়েছে। সেটা প্রস্তুত আছে। তারা যখনই চাইবে তখনই দেওয়া সম্ভব হবে।’

এর আগে নানা টানাপোড়েন শেষে গত ৩০ এপ্রিল ওষুধ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিএসএমএমইউ ও আইসিডিডিআরবি-কে লিখিতভাবে অনুরোধ জানানো হয় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত ‘জিআর কোভিড-১৯ ডট ব্লোট’ পরীক্ষার জন্য।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published.